আজিমপুর কবরস্থানে চিরনিদ্রায় শায়িত হলেন সুনামগঞ্জের কৃতিসন্তান এম. এ রশীদ চৌধুরী

আল-হেলাল, সুনামগঞ্জ: জালালাবাদ এসোসিয়েশন ঢাকার সাবেক সাধারণ সম্পাদক এম. এ রশীদ চৌধুরী আজ (৭৬) আর নেই। ইন্নালিল্লাহী ওয়া ইন্না ইলাইহী রাজিউন।

৬ জুন শনিবার ভোর রাতে ঢাকায় তাঁর আজিমপুরস্থ নিজ বাসভবনে শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন তিনি। তাঁর পৈতৃক নিবাস সুনামগঞ্জ সদর উপজেলার গৌরারং ইউনিয়নের আহমদাবাদ গ্রামে। মরহুম এম. এ রশীদ চৌধুরী আশির দশকে জালালাবাদ এসোসিয়েশন এর কর্মকান্ডে অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখেন। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে অর্থনীতিতে স্নাতকোত্তর ডিগ্রিধারী এই সফল ব্যবসায়ী ইসলামী ব্যাংক লি: এর প্রতিষ্ঠাতা পরিচালক ছিলেন।

মরহুম রশীদ চৌধুরীর মৃত্যুতে জালালাবাদ এসোসিয়েশন ঢাকার সভাপতি ড.এ কে এ মুবিন, সাধারণ সম্পাদক এডভোকেট জসিম উদ্দিন আহমদ, জালালাবাদ ভবন ট্রাষ্টের চেয়ারম্যান আব্দুল হামিদ চৌধুরী, সেক্রেটারি আব্দুল কাইয়্যুম চৌধুরী, জালালাবাদ শিক্ষা ট্রাষ্টের চেয়ারম্যান ড. মোহাম্মদ ফরাস উদ্দিন, সেক্রেটারি জালাল আহমেদ সুগভীর শোক প্রকাশ ও তার শোকসন্তপ্ত পরিবারের প্রতি গভীর শ্রদ্ধা ও সমবেদনা জ্ঞাপন করেছেন।

জীবদ্ধশায় এম. এ রশীদ চৌধুরী ঢাকাস্থ জাতীয় দৈনিক বাংলার বাণী পত্রিকাটির প্রতিষ্ঠালগ্ন থেকে সম্পাদনা পরিষদের সাথে যুক্ত ছিলেন। এছাড়াও তার সম্পাদনায় প্রকাশিত হতো ভিলেজ ডাইজেষ্ট নামে একটি সাহিত্য পত্রিকা। তিনি দীর্ঘদিন প্রেস ব্যবসার সাথেও জড়িত ছিলেন।

এডভোকেট আবু আলী সাজ্জাদ হোসাইন সম্পাদিত “সুনামগঞ্জ জেলার ইতিহাস ঐতিহ্য”নামক গবেষণালব্ধ ঐতিহাসিক গ্রন্থটির প্রকাশনায় তিনি সার্বিক সহযোগীতা করেন। রাজধানীতে এলাকার শিক্ষিত বেকার যুবকদের কর্মসংস্থানে তার সহযোগীতা ছিল অব্যাহত। তিনি নও মুসলিমদের পূণর্বাসনেও বিভিন্ন পদক্ষেপ গ্রহন করেন। শনিবার দুপুরে নামাযে জানাযা শেষে আজিমপুর কবরস্থানে তাকে দাফন করা হয়।

ফেসবুক কমেন্ট
%d bloggers like this: