হত্যা করে আমার ছেলের লাশ ডোবায় ফেলে দেওয়া হয়েছে

মো: আবুল কাশেম, বিশ্বনাথ : সিলেটের বিশ্বনাথে ‘নিখোঁজের’ একদিন পর ডোবা থেকে রবিউল ইসলাম (১২) নামের এক মাদ্রাসা ছাত্রের লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ।

রবিউল উপজেলার রামপাশা ইউনিয়নের রহমান নগর গ্রামের আকবর আলীর ছেলে ও স্থানীয় গোয়াহরি লতিফিয়া-ইর্শাদীয়া মাদরাসার তৃতীয় শ্রেনীর ছাত্র।

মঙ্গলবার ১৩ অক্টোবর সকালে রামপাশা-বৈরাগীবাজার সড়কের বাল্লার ব্রিজের পাশে একটি ডোবা থেকে তার লাশ উদ্ধার করা হয়। নিহতের শরীরের বিভিন্ন স্থানে গুরুতর আঘাতের চিহৃ রয়েছে। ধারণা করা হচ্ছে কে বা কাহারা হত্যা করে লাশ ডোবায় ফেলে যায়।

জানা যায়, নিহত রবিউল ইসলাম সোমবার ১২ অক্টোবর সকাল ১০টার দিকে বাড়ি থেকে বের হয়ে আর বাড়িতে ফিরে না আসায় পরিবারের লোকজন সম্ভাব্য সকল স্থানে খোঁজাখুঁজি করে তাকে না পাওয়ায় ওই দিন বিকেলে বিশ্বনাথ থানায় সাধারণ ডায়েরী করা হয়।

পরদিন মঙ্গলবার সকাল ৮টার দিকে স্থানীয় রামপাশা-বৈরাগীবাজার সড়কের বাল্লার ব্রিজের পাশে একটি ডোবায় রবিউল ইসলামের মরদেহ পড়ে থাকতে দেখেন একজন কৃষক। খবর পেয়ে তাৎক্ষনিক থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে লাশটি উদ্ধার করে। নিহতের পিতা আকবর আলীর অভিযোগ, হত্যা করে আমার ছেলের লাশ ডোবায় ফেলে দেওয়া হয়েছে।

বিশ্বনাথ থানার অফিসার ইন-চার্জ (ওসি) শামীম মুসা বলেন, লাশ উদ্ধার করে মর্গে প্রেরণের প্রস্তুতি চলছে। এটি একটি হত্যাকান্ড। ঘটনার রহস্য উদঘাটন ও জড়িতদের আইনের আওতায় নিয়ে আসতে আমরা চেষ্টা করে যাচ্ছি।

ফেসবুক কমেন্ট

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

%d bloggers like this: